এলিফ্যান্ট সং

4.00 গড় রেটিং - 1 ভোট
বাড়তি নাম: Elephant Song
প্রকাশক: ঝিনুক প্রকাশনী
বিষয়: অনুবাদ, উপন্যাস, থ্রিলার ও অ্যাডভেঞ্চার
লেখক:
পৃষ্ঠাসমূহ: 352
আইএসবিএন: 9847011200576
ভাষা: বাংলা
ধরণ: পিডিএফ
অনুবাদক: মখদুম আহমেদ

ড্যানিয়েল আর্মষ্ট্রং একজন নামকরা সাংবাদিক। নিজ পেশায় সে অসাধারন দক্ষ। এছাড়াও তার আছে পূর্বে সৈনিকের কাজ করারও অভিজ্ঞতা। এবারে সে এসেছে বন্ধু জনি নজুর কাছে যে একটি সাফারি পার্কের ওর্য়াডেন। তাদের গুদামে জমা রয়েছে অনেক হাতির দাত যা সোনার মতোই দামী। ড্যানিয়েল ছাড়াও সেখানে আরো একজন অতিথি আছেন, নিং শেঙ গং। তাইওয়ানের রাষ্ট্রদূত।

ড্যানির চলে যাবার দিনই একটা ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটে। পোচাররা হামলা করে জনি নজু ও তার পরিবারকে নৃশংষভাবে হত্যা করে। বর্বরতম এই হত্যাকান্ড পাঠকের মন নাড়িয়ে দিবে। তবে এটা আফ্রিকা এবং উপন্যাসই নয়, বাস্তবেও আসলে এমন হয়। তো, ড্যানি শেষ মুর্হুতে গেলেও ততক্ষনে ঘটনা ঘটে যায়। ড্যানির সন্দেহ যায় রাষ্ট্রদূত নিং শেঙ গংয়ের দিকে। কিন্তু তার হাতে নেই কোন প্রমান। কিন্তু সে হাল ছাড়ার ব্যাক্তি নয়। একাই নেমে পড়ে লড়াইয়ে। বের করে নিং শেঙ গংয়ের আরেক পার্টনার শেঠি সিংকে যে হাতির দাঁতের ব্যবসার মাষ্টারমাইন্ড ক্রিমিনাল। তাকে একটা শিক্ষা দেয় ড্যানি। এরপর ফিরে আসে ইংল্যান্ডে।

ঘটনাক্রমে স্যার হ্যারিসন, এক ধর্ণাঢ্য ইংরেজ ব্যবসায়ী ডেকে পাঠান ড্যানিকে। তিনি আফ্রিকার একটি দেশে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছেন যেখানে সদ্য একটি বিপ্লব হয়েছে এবং ইফ্রেম টাফারি নামক এক অত্যাচারী জেনারেল ক্ষমতা দখল করে রেখেছে। স্যার হ্যারিসন চান ড্যানি যেন কিছু পজেটিভ ইমেজ তৈরী করেন দেশটি সর্ম্পকে। ড্যানি যেতে রাজি হয় ভেতরের আসল খবর জানার জন্য। তার সহকারী দেওয়া হয় বোনি ম্যাহন নামের এক সেক্স ম্যানিয়াক মেয়েকে। সেখানে গিয়ে পরিবেশবিদ ড. কেলির সাথে দেখা হয় ড্যানির যে কিনা সেখানকার বর্তমান সরকারের বিরোধিতা করে যাচ্ছে। দেশটির পরিস্থিতি ক্রমেই জটিলতর দেখতে পায় ড্যানিয়েল। তবে তারচেয়েও জটিলতা আসে তখনই যখন সে তার পুরোনো শত্রু, প্রতাপশালী নিং শেঙ গংকে সেখানে দেখতে পায়।

রিভিউস

আবশ্যিক তথ্যগুলো * দিয়ে চিহ্নিত করা। আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না।