নন্দীবাড়ির শাঁখ

3.00 গড় রেটিং - 1 ভোট
বাড়তি নাম: Nondibarir Shakh
সিরিজ: অদ্ভুতুড়ে সিরিজ
প্রকাশক: আনন্দ পাবলিশার্স
বিষয়: শিশু-কিশোর, রহস্য
লেখক:
পৃষ্ঠাসমূহ: 86
আইএসবিএন: 9789350407493
ভাষা: বাংলা
ধরণ: পিডিএফ
গ্রামের অদূরে যে গহীন জঙ্গল, সেইখানে ভাঙ্গা এক জমিদার বাড়ি। নন্দীবাড়ি বলে লোকে। গাঁয়ের সকলেই জানে, বাড়িটাতে অনেক অশৈলী কাণ্ডকারখানা হয়! কখনও ফাঁকা ঘরগুলোতে দীর্ঘশ্বাস ভেসে বেড়ায়, বা পায়ের শব্দ আস্তে আস্তে সিঁড়ি বেয়ে উঠে যায়। গভীর রাতে কুয়োর জল তুলে কারা যেন স্নান করে নেয়। এগুলো তো কিছুই নয়। সাহস করে রাত্তিরবেলা নন্দীবাড়ির উঠোনে ঢুকে পড়লে দেখা যায়, নাটমণ্ডপে কথকতার আসর বসেছে। একতলার রোয়াকে মাদুর পেতে দাবা খেলা জমে উঠে। চাতালে যাত্রার পালাও বসে। বেশী কাছে যেতে চাইলেই, স-ব দুম করে অন্ধকার আর ফাঁকা। তেনারা ঘেঁষাঘেঁষি বিশেষ পছন্দ করেন না কিনা! তাই বলে বাড়িটা পরিত্যক্ত নয় কিন্তু! জমিদার বংশের শেষ পুরুষ গোপাল একাই থাকে এখানে। সাথে থাকে বুড়ো কাজের লোক মহাদেব, সুখলতা আর প্রবীণ ঠাকুরমশাই। তাদের সকলেরই এসব গা সওয়া। নন্দীবাড়ি নিয়ে নানারকম গুজব আছে গ্রামে। বাড়িটাতে যে দুশো বছরের পুরোনো পিতলের বিষ্ণুমূর্তি রয়েছে না? তার হাতে রয়েছে বিশাল এক দক্ষিণাবর্ত শাঁখ। কথিত আছে, বিপদে আপদে শাঁখটা আপনাতেই বেজে উঠে! একদিন শেষরাতে, গোপালের ঘুম ভাঙ্গলো সেই শঙ্খধ্বনিতে। গভীর, বিষন্ন, কান্নার মতো আওয়াজ, হাত-পা ঠান্ডা হয়ে আসে। মশাল জ্বালিয়ে ঠাকুরদালানে গিয়ে দেখে, বিষ্ণুর হাতে শাঁখটা যে নেই! চুরি গেছে নন্দীবাড়ির শাঁখ!

রিভিউস

আবশ্যিক তথ্যগুলো * দিয়ে চিহ্নিত করা। আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না।