অষ্টপুরের বৃত্তান্ত

4.00 গড় রেটিং - 1 ভোট
বাড়তি নাম: Astapurer Brittanto
সিরিজ: অদ্ভুতুড়ে সিরিজ
প্রকাশক: আনন্দ পাবলিশার্স
বিষয়: শিশু-কিশোর, রম্য সাহিত্য
লেখক:
পৃষ্ঠাসমূহ: 86
আইএসবিএন: 9789350400944
ভাষা: বাংলা
ধরণ: পিডিএফ
নগেন পাকড়াশির ছেলে পল্টু পাকড়াশি রাগের মাথায় দুটা খুন করে ফেলেছে। তাকে বাঁচাতে নগেন পাকড়াশি এক অভিনব কায়দা আঁটলেন। নবীনের চেহারা অনেকটা পল্টুর মত দেখতে। তাছাড়া নবীনের কিছু জমিও তার কাছে বন্ধক দেয়া। তাই তিনি নবীনকে বললেন তার ছেলের হয়ে নবীনকে জেলে যেতে। বড়জোড় সাত আট বছর জেল হবে। বিনিময়ে তার জমি ফিরিয়ে দিবেন এবং নগদ পাঁচ লাখ টাকাও দিবেন। ধারদেনায় ডুবে ছিল নবীন, তাই রাজি হয়ে গেল। মাত্র তো আটটা বছর। কিন্তু ওকে যে ঠকানো হয়েছে তা সে টের পায়নি। আসলে পল্টুর ফাঁসির রায় হয়েছে। জেলে যাওয়ার পর এটা জানতে পারল নবীন। তবে এক উকিল ওকে চেনে বলে ওর সাহায্য করল। জেলার সাহেবকে বলে ওকে ছাড়িয়ে দিল। ওখান থেকে পালিয়ে নবীন এসে পড়ল অষ্টপুর গ্রামে। ক্ষুধার তারনায় নবীন চুরি করল অবনীবাবুর মানিব্যাগ। অবনীবাবু এ গ্রামের জামাই। কিছুদিন থেকেই তার এটা সেটা চুরি যাচ্ছে। তাই মতলব করে মানিব্যাগ টা এমন জায়গায় রেখেছিল যাতে কেউ চুরি করতে এলেই ধরা পড়ে। ধরেও ফেলল নবীনকে। বাজারের মানুষ গণপিটুনি দিয়ে অষ্টপুর থানায় দিয়ে এল নবীনকে। গঞ্জ থেকে পল্টু ধরা পড়েছে শুনে ফোর্স আসছে নবীনকে নিয়ে যেতে। থানার বড়বাবু প্রানপতি একটু অন্য ধরনের মানুষ। সবসময় নিজের ভাবনায় মগ্ন থাকেন। সে যে অষ্টপুর থানার বড়বাবু এটাও তার মনে থাকেনা। নিজের স্ত্রীকেও একবার বউদি ডেকেছিলেন। নিজের মেয়েকে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে থুঁতনিতে হাত দিয়ে জিজ্ঞেস করেছিলেন খুকি তোমার নাম কি? এই প্রানপতি বাবু ইদানিং একটু সমস্যাতেই পড়েছেন। পল্টু নামে যে ফাঁসির আসামী ধরা পড়েছে সে দাবী করছে সে পল্টু নয়, সে নবীন। পল্টু যে দুজনকে খুন করেছিল তাদের একজনের ভাই এবং একজনের শশুড় অষ্টপুর রওনা হয়েছে পল্টুকে খুন করতে। তারাও এসে দেখে থানায় যাকে আটকে রাখা হয়েছে সে পল্টু নয়, নবীন। বড়বাবুকেও বলে গেলেন এ পল্টু নয়। এদিকে নবীন যদি স্বীকার করে যে নগেন পাকড়াশি তাকে দিয়ে এসব করিয়েছে, সে পল্টু নয়, তাহলে কেলেঙ্কারি হয়ে যাবে। তাই সেও লোক পাঠালো নবীনকে খুন করার জন্য। অপহরণ হল থানার বড়বাবুর মেয়ে। তারপর?

রিভিউস

আবশ্যিক তথ্যগুলো * দিয়ে চিহ্নিত করা। আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না।