শুভ্র গেছে বনে

4.00 গড় রেটিং - 1 ভোট
বাড়তি নাম: Shuvro Geche Bone
সিরিজ: শুভ্র সিরিজ
প্রকাশক: অন্যপ্রকাশ
বিষয়: উপন্যাস, সমকালীন উপন্যাস, থ্রিলার ও অ্যাডভেঞ্চার
লেখক:
পৃষ্ঠাসমূহ: 135
আইএসবিএন: 9848685561
ভাষা: বাংলা
ধরণ: পিডিএফ

উপন্যাস শুরু হয় চৈত্রের এক ঝকঝকে দিনে । শান্ত সুন্দর বিকেলে হঠাৎ হাঙ্গামা শুরু হয় । হঠাৎই একদল কোথা থেকে আসে, আর একটা গাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয়। যুথী এসেছিল বান্ধবীর জন্মদিনের জন্য ফুল কিনতে। কেনার পরপরই গন্ডগোল বাধে আর দোকানদার দোকানের ঝাপ বন্ধ করে গায়েব হয়ে যায়। এদিকে চশমা ছাড়া অসহায় শুভ্র যুথীর সাহায্য প্রার্থনা করে। যে গাড়িটা পুড়ছে ওটা শুভ্রর বাবার আর ওর চশমা , মানিব্যাগ সব ছিল গাড়ির ভেতরে।

তাই আর কোন উপায় না দেখে যুথী শুভ্রকে সাথে নিয়ে বান্ধবীর পার্টিতে যোগ দেয়। কিন্তু শুভ্রকে দেখে কে বলবে, সে আমন্ত্রিত অতিথি না। দিব্যি সে করিম আঙ্কেলের বক্তৃতা শোনে, অধিরে অপেক্ষা করে জলকেলী প্রতিযোগীতায় কে বিজয়ী হয় দেখার জন্য। অন্যদিকে যুথীর বাবা মিথ্যা অসুস্থতার কথা বলে যুথিকে তাড়াতাড়ি ফিরতে বাধ্য করে।

যুথী একটা চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যায় আর অপ্রত্যাশিত ভাবে চাকরিটা পেয়েও যায়। বেতন বিশ হাজার টাকা সাথে আরো সুবিধা আছে। কিন্তু প্রথম দিনে অফিসে জয়েন করতে গিয়ে জানতে পারে কোন কারণ না জানিয়েই তাকে এই পদে চাকরি দেয়া হচ্ছেনা। বাসায় ফিরে জানতে পারে তার বড়ভাই টুনুর কাছে লাইলি নামে একটা মেয়ে সুটকেস সহ এসে হাজির হয়ছিল। টুনু লাপাত্তা আর যুথীর বাবা আজহার সাহেব মেয়েটাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছেন। মেয়েটা অনেক্ষণ বসে বসে কাদছিল তারপর কোথায় চলে গেছে।

লাইলি আসলে ভালই আছে। প্রথমে তাকে বাড়ি নিয়ে গিয়েছিল শুভ্র। তারপর তার মা লাইলিকে বের করে দেয়। শুভ্রও সেই সাথে বের হয়ে যায়। লাইলিকে যুথীর বান্ধবী নীপার বাড়িতে রেখে সে বেড়িয়ে পরে। শেষ পর্যন্ত একটা পার্কে এসে বসে থাকে, যেখানে সর্বদা নিশিকন্যাদের আনাগোনা।

অন্যদিকে যুথীদের বাসায় একদল পুলিশ তল্লাশি চালায়। ফ্রুট ফোটন নামে এক শীর্ষ সন্ত্রাসী খোঁজার জন্য আসে তারা। ফ্রুট ফোটন কে তাতো যুথী জানে না। এখন কি হবে? টুনুই বা কোথায়? শুভ্রর গন্তব্যই বা কোথায়?

রিভিউস

আবশ্যিক তথ্যগুলো * দিয়ে চিহ্নিত করা। আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না।