গর্ভধারিণী

5.00 গড় রেটিং - 1 ভোট
বাড়তি নাম: Garbhadharini
প্রকাশক: মিত্র ও ঘোষ পাবলিশার্স
বিষয়: উপন্যাস
লেখক:
পৃষ্ঠাসমূহ: 388
আইএসবিএন: 9788172930264
ভাষা: বাংলা
ধরণ: পিডিএফ

ভিন্ন ধরনের পরিবেশে বড় হয়ে উঠা চার বন্ধু জয়িতা, সুদীপ, আনন্দ, কল্যাণ। তিন ছেলের মাঝে জয়িতা একা একটি মেয়ে। কিন্তু নিজেকে কখনো মেয়ে বলে মনে করে না জয়িতা। তার কাছে নিজের সবচেয়ে বড় পরিচয়, সে একজন মানুষ। এরা চারজন খুব ভালো বন্ধু। প্রেসিডেন্সি কলেজের ছাত্র চারজনই।

জয়িতা তার বাবা-মায়ের একমাত্র মেয়ে। তার বাবা রামানন্দ রায় এবং মা সীতা রায়। রামানন্দ রায় সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তিদের একজন। আর মা সীতা রায় একজন ভীষণ সুন্দরী মহিলা। যিনি সারা দিনরাত ক্লাব, পার্টি করে বেড়ানো খুব বেশি পচ্ছন্দ করেন। মেয়েরা সাধারণত মায়ের মতো হয়। মা যেভাবে চলে মেয়েরাও নাকি তেমন ভাবেই চলে। কথাটাকে জয়িতা ভুল প্রমাণ করলো। কারণ জয়িতা তার এই বিত্তশালী পরিবারে একদমই বেমানান। সুদীপ ছেলেটিও তার বাবা-মায়ের একমাত্র ছেলে। তার বাবা অবনী তালুকদার শহরের একজন নামকরা উকিল। সুদীপের মা বহুদিন ধরেই বিছানায় শোয়া। সুদীপের সাথে তার বাবার সম্পর্ক তেমন ভালো না। মায়ের প্রতিই যা একটু টান এছাড়া বাবার সাথে তার ঠিকমতো চোখের দেখাটাও হয় না।

আনন্দ ছেলেটার বাবা নেই। বাবা মারা যাওয়ার পর মা এই ছেলেটিকে বহু কষ্টে বড় করেছেন। কল্যাণের পরিবারে আছে বাবা, মা, দুই দাদা, বৌদি। অন্য তিন বন্ধুদের থেকে তার পরিবার বেশ নিম্নবিত্ত। অভাবের এই সংসারে ঠিক মতো খাওয়া হয় না কল্যাণের। তাইতো ওর স্বপ্ন খুব বড় একটা হোটেলে একদিন পেটপুরে খাবে। পরিবারের অবস্থা যার যেমনই হোক, আর্থিক অবস্থানের দিকে তাদের মিল না থাকলেও মিল আছে তাদের স্বপ্নে। এই একটা জায়গায় তারা ঐক্যবদ্ধ।

সমাজের বিভিন্ন অসংগতিমূলক কাজ দূর করে সমাজের মানুষদের সচেতন করার এক বৃহৎ পরিকল্পনা হাতে নেয়। প্রথম অভিযান চালায় ডায়মন্ডহারবারের এক ক্লাবে। তারপর দ্বিতীয় অভিযান হয় এক ওষুধ কারখানায়। নকল ওষুধ তৈরী হতো এখানে। এরপর তৃতীয় আরেকটি অভিযান চালানোর কথা থাকলেও নিজেদের নিরাপত্তা রক্ষার কথা ভেবেই পিছনে সরে আসে। কারণ ইতিমধ্যেই পুলিশের কাছে তাদের পরিচয় চলে যায়।

তাহলে এখন কি হবে এই চার তরুণের? পুলিশ কি ওদের ধরে ফেলবে? যেই স্বপ্ন পূরণের অঙ্গিকারে তারা নেমেছিলো সেই স্বপ্ন কি পূরণ হবে আদৌ?

রিভিউস

আবশ্যিক তথ্যগুলো * দিয়ে চিহ্নিত করা। আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না।