হাজার বছর ধরে

5.00 গড় রেটিং - 1 ভোট
বাড়তি নাম: Hajar Bochor Dhore
প্রকাশক: অনুপম প্রকাশনী
বিষয়: চিরায়ত উপন্যাস, উপন্যাস
লেখক:
পৃষ্ঠাসমূহ: 114
আইএসবিএন: 9789844043572
ভাষা: বাংলা
ধরণ: পিডিএফ

গ্রামীণ বাংলার চিরন্তন রূপ, বৈশিষ্ট্য, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি নিয়ে লেখা "হাজার বছর ধরে" উপন্যাসের মূল কাহিনী। এই গ্রামের পত্তন কবে কেউ জানে না। পরীর দিঘির পাড়ে গড়ে উঠা এক গ্রাম। এই পরীর দিঘিও কে বা কারা তৈরী করেছে তাও কেউ জানে না। লোকমুখে প্রচলিত এই দিঘি পরীরা তৈরি করেছে।

কাশেম শিকদার এই গ্রামের প্রথম বাসিন্দা বলেই ধরা হয়। বানের জলে ভাসতে ভাসতে কাশেম শিকদার স্ত্রী ছমিরন বিবিকে নিয়ে এই গ্রামে আসেন। নিঃসন্তান এক দম্পতি তারা। ছমিরন বিবি বুঝেন ভিটেতে আলো দিতে হলে একটা সন্তান খুব দরকার। স্বামীকে বিয়ের পাগড়ি পড়িয়ে নতুন বউ ঘরে এনে ছুটে যান পরীর দিঘির পারে। গুনে গুনে চারটি ধুতরা ফুল খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন ছমিরন বিবি।

সেই শিকদার বাড়ির প্রধান এখন মকবুল। তিন বউ তার। তিন বউয়ের সবচেয়ে ছোট বউয়ের নাম টুনি। অল্প বয়সী একটা মেয়ে।

এই বাড়িতে আট পরিবারের বসবাস। সবচেয়ে ছোট্ট যে ঘরটা দক্ষিণ দিকে। সেই ঘরে থাকে মন্তু। সবার চোখে একরোখা, একগুঁয়ে, বদমেজাজি হলেও টুনির চোখে সে মাটির মানুষ।

এই আট ঘরের সদস্যদের মাঝে যেমন অনেক মিল আবার অমিলও আছে। একেকজনের বৈশিষ্ট্য একেকরকম। এই পরিবারেরই একজন আবুল। বউ মারাই যায় নিত্যনৈমিত্তিক কাজ। দুই বউকে তো মেরেই ফেলেছে। কারো কথা শুনে না বলে কেউ তার সাতে পাঁচে নেই।

এভাবেই বয়ে চলে এসব মানুষের জীবন। প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করে বাচেঁ এসব মানুষেরা। তাদের গল্প সংগ্রামী মানুষের জীবন গাথা। কখনো এসব গল্পে দেখা যায় তাদের জয়ী হওয়ার কথা, কখনোবা তাদের পরাজয়ের গল্প। তবুও তাদের জীবন সংগ্রাম থামে না কখনো। দেখতে দেখতে পার হয়ে যায় সময়। দিন আসে দিন যায়, নামে রাত, হাজার বছরের পুরোনো সেই রাত।

রিভিউস

আবশ্যিক তথ্যগুলো * দিয়ে চিহ্নিত করা। আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশ করা হবে না।