শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়

পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় ১৯৩৫ সালের ২রা নভেম্বর বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের টালমাটাল সময়ে পরিবারসমেত কলকাতা পাড়ি জমান। বাবার চাকরির সুবাদে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় শৈশব কেটেছে তার। কোচবিহার বোর্ডিং স্কুলে প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন করেন তিনি। মাধ্যমিক পাস করেন কোচবিহার ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে। পরে কলকাতা কলেজ থেকে বিএ এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। শীর্ষেন্দু তার পেশাজীবন শুরু করেন শিক্ষকতার মাধ্যমে। দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকায় সাংবাদিকতাও করেছেন কিছুদিন। বর্তমানে সাহিত্য পত্রিকা দেশ-এর সহকারী সম্পাদক পদে নিয়োজিত আছেন। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় ছোটবেলা থেকেই ভীষণ বইপড়ুয়া ছিলেন। হাতের কাছে যা পেতেন তা-ই পড়তেন। খুব ছোটবেলাতেই তিনি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মানিক বন্দোপাধ্যায়, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, তারাশংকর বন্দোপাধ্যায় এর মতো লেখকদের রচনাবলী পড়ে শেষ করেছেন। এই পড়ার অভ্যাসই তার লেখক সত্ত্বাকে জাগিয়ে তোলে। ১৯৫৯ সালে দেশ পত্রিকায় তার প্রথম গল্প ‘জলতরঙ্গ’ প্রকাশিত হয়। দীর্ঘ ৭ বছর পর দেশ পত্রিকাতেই প্রকাশিত হয় তার প্রথম উপন্যাস ‘ঘুণপোকা’। এরপর থেকেই নিয়মিত লিখতে থাকেন তিনি। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর বই এর সংখ্যা দু’শতাধিক। তাঁর উল্লেখযোগ্য উপন্যাস পার্থিব, দূরবীন, মানবজমিন, গয়নার বাক্স, যাও পাখি, পারাপার ইত্যাদি। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর রহস্য সমগ্র রহস্যপ্রেমীদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। প্রায় ৪০ এর অধিক রহস্য গল্প প্রকাশিত হয়েছে ‘অদ্ভুতুরে সিরিজ’ নামকরণে। মনোজদের অদ্ভুত বাড়ি, ভুতুড়ে ঘড়ি, হেতমগড়ের গুপ্তধন, নন্দীবাড়ির শাঁখ, ছায়াময় ইত্যাদি এই সিরিজের অন্তর্ভুক্ত। এছাড়াও তিনি বেশ কিছু ছোটগল্প রচনা করেছেন। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর বই সমূহ দুই বাংলায় পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে সমানতালে। এছাড়াও শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর বই সমগ্র অবলম্বনে বিভিন্ন সময় চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে। তার উপন্যাস ‘যাও পাখি’ এবং ‘মানবজমিন’ নিয়ে বাংলাদেশেও ধারাবাহিক নাটক নির্মিত হয়েছে। তার সৃষ্ট চরিত্র শাবর দাশগুপ্ত এবং ধ্রুব পাঠক হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে। সাহিত্যে অবদানের জন্য অনেক পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। শিশু-কিশোরদের জন্য লেখা উপন্যাস ‘মনোজদের অদ্ভুত বাড়ি’র জন্য ১৯৮৫ সালে ‘বিদ্যাসাগর পুরস্কার’ পান। ১৯৭৩ এবং ১৯৯০ সালে পেয়েছেন ‘আনন্দ পুরস্কার'। ১৯৮৮ সালে ‘মানবজমিন’ উপন্যাসের জন্য অর্জন করেন ‘সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার’। এছাড়াও, ২০১২ সালে পশ্চিমবঙ্গ সরকার প্রদত্ত সম্মান ‘বঙ্গবিভূষণ’ লাভ করেন তিনি।
মোট 56 বই পাওয়া গেছে
আসমানির চর
2019
রাজবাড়ির ওয়ারিশ কর্নেল বীরভঞ্জ এসেছে গাঁয়ে। সাথে সহচর। এরা আসমানির চর নামক জায়গায়...
জং বাহাদুর সিংহর নাতি
2017
শীর্ষেন্দুর উপন্যাসের প্লট নিয়ে নতুন করে লেখার কিছু নেই, কারণ উনি নতুন কিছু লেখেননি।...
হাবু ভুঁইমালির পুতুল
2016
গল্প টা মহীধরের, যে কিনা বেজায় কিপটে লোক। সে প্রতিদিনের খরচা, দান-দক্ষিণা যাই হোক...
বিপিনবাবুর বিপদ
1998
নফরগঞ্জ গ্রামে বিখ্যাত কৃপণ বলে যদি কেউ থেকে থাকে, তবে তিনি বিপিনবাবু। শুধু নফরগঞ্জেই...
পার্থিব
1994
পার্থিব শীর্ষেন্দুর বিশাল ক্যানভাসে আঁকা এক উপন্যাস। এই উপন্যাসে পৃষ্ঠার সংখ্যাও যেমন...
দূরবীন
1986
বইটিতে মূলত: তিন প্রজন্মের কাহিনীর সংমিশ্রণ। উপন্যাসের শুরুতে প্রথম প্রজন্মের নায়ক...
ঘুণপোকা
1967
শ্যাম চক্রবর্তী। বিক্রমপুর,বনিখাড়া গ্রামের এক কিশোর যে যৌবন উপভোগ করেছে কলকাতায় ,...
ছায়াময়
1992
গ্রামের নাম শিমুলগড়। বেশ শান্ত, সুনিবিড় এক গ্রাম। সেই গ্রামের কোন একজনের নাম ছায়াময়।...
কাগজের বউ
1977
মানুষের তিনটি বিত্ত, নিন্মবিত্ত, মধ্যবিত্ত আর উচ্চবিত্ত। এক স্তর থেকে মানুষ অনেক সময়...
বনি
1990
আমরা সবাই জানি, বাচ্চা জন্ম নেয়ার পর চিৎকার দিয়ে কান্না করে পৃথিবীকে জানান দেয় তার...
ভালোবাসা
এই ঘরে তোমার দাদু মারা গিয়েছিলেন না! বেঁচে থাকতে যিনি তোমাকে অত ভালোবাসতেন, মরার পর কি...
গোয়েন্দা বরদাচরণ সমগ্র ও অন্যান্য...
2007
একথা বলার অপেক্ষা রাখে না বাংলা ভাষায় ছোটদের জন্যে গল্প লিখিয়েদের শীর্ষে আছেন...
প্রতি পৃষ্ঠায় বই: